Text size A A A
Color C C C C
পাতা

প্রকল্প

গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্প সমূহঃ

 

□ জেলা শিল্পকলা একাডেমি ভবন নির্মাণ প্রকল্প

সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়াধীন বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির আওতায় বিভাগীয় জেলা ও অন্যান্য জেলাসমূহের মধ্যে কুড়িগ্রাম জেলা শিল্পকলা একাডেমী ভবন এবং আধুনিক সরঞ্জাম ও সুবিধা সম্বলিত অডিটোরিয়াম নির্মাণ প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। চাহিদা মোতাবেক জেলা শিল্পকলা একাডেমী স্থাপনের জন্য উপযুক্ত জমি বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

□ জেলা শিল্পকলা একাডেমি সম্মাননা

বাংলাদেশের শিল্প ও সংস্কৃতির ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ ১. কন্ঠ সংগীত ২. নৃত্যকলা ৩. যন্ত্রশিল্পী ৪. চারুকলা ৫. ফটোগ্রাফি ৬. নাট্যকলা ৭. চলচ্চিত্র ৮. আবৃত্তি ৯. যাত্রাশিল্প ১০. লোক সংস্কৃতিসহ সংস্কৃতির যে কোন শাখায় অসামান্য অবদানের জন্য ০৫ (পাঁচ) জন ব্যক্তিকে সম্মাননা প্রদান প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

□ জেলা শিল্পকলা একাডেমি লাইব্রেরী গঠন

বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমীসহ বিভিন্ন প্রকাশনা সমূহের শিল্প ও সংস্কৃতি বিষয়ক গ্রন্থের সমৃদ্ধ সংগ্রহশালা তৈরী করা ।

□ অডিও ভিডিও সংগ্রহশালা এবং ডকুমেন্টেশন সেল

* মহান মুক্তিযুদ্ধের ভিডিও চিত্র, প্রামাণ্যচিত্র, চলচ্চিত্র এবং মডেল সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, মঞ্চ নাটক, নৃত্য ও সংগীতের সিডি ও ডিভিডি নিয়ে অডিও ভিডিও সংগ্রহশালা তৈরী করা।

* বীরপ্রতীক তারামন বিবি’র স্বাক্ষাৎকার ভিত্তিক তথ্যচিত্র নির্মাণ ও প্রদর্শনীর ব্যবস্থা করা ।

*  লোক ঐতিহ্যের বিভিন্ন আঙ্গিকের প্রতিকৃতি সংগ্রহ ও স্থায়ীভাবে সংশ্লিষ্ট গ্যালারিতে প্রদর্শন।

□ সাহিত্য নির্ভর নাট্য প্রযোজনা নির্মাণ ও জেলা শিল্পকলা একাডেমী রেপার্টরী নাট্যদল গঠন।

রাজস্ব বাজেট হতে অর্থায়নকৃত কার্যক্রমঃ বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমীর উদ্যোগে নাট্যকলা ও চলচ্চিত্র বিষয়ক বিভাগের ব্যবস্থাপনায় ৬৪ টি জেলায় জেলা শিল্পকলা একাডেমী রেপার্টরী নাট্যদল গঠন এবং তাদের পরিবেশনায় সাহিত্য নির্ভর নাট্য প্রযোজনা নির্মাণ।

□ চারুকলা বিভাগ

* মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক শিল্পকলা উৎসব আয়োজন করা।

* জেলা শিল্পকলা একাডেমীতে ২০১৪ সালে চারুকলা বিভাগের কার্যক্রম   

শুরু করা।

* শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদিন এর জন্মশত বর্ষ উদযাপন, চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা এ চিত্র প্রদর্শনীর আয়োজন করা।

□ প্রযোজনা ও প্রশিক্ষণ কার্যক্রম

* ভাষা আন্দোলন ও মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক মঞ্চ নাটক নির্মাণ ও মঞ্চায়ন করা।

* ভাষা আন্দোলনের প্রক্ষাপটে পথনাটক একুশের অ-ক, গ্রন্থনা ও নির্দেশনা: আলমগীর কবির লিমন প্রযোজনা: জেলা শিল্পকলা একাডেমী এর নিয়মিত প্রদর্শনী।

* চারুকলা ও নাটক বিষয়ে উচ্চতর প্রশিক্ষণ আয়োজন ।

* জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে সংস্কৃতির বিভিন্ন শাখায় উচ্চতর প্রশিক্ষণ প্রদান কার্যক্রম আরম্ভ করা ।

□ ফোকলোর সেল গঠন ও সাংস্কৃতিক বৈশিষ্ট্য নিরুপণ

* জেলার লোক ঐতিহ্যের বিভিন্ন আঙ্গিক নিয়ে গবেষণা ও জাতীয় পর্যায়ে তুলে ধরা।

* জেলার সাংস্কৃতিক বৈশিষ্ট্য নিরুপণ করা।

* ভাওয়াইয়া সংগীত নিয়ে গবেষণা এবং প্রাচীন সুর ও কথা সংগ্রহ করা।  

* লুপ্ত প্রায় সংগীত যন্ত্র, পোশাক-পরিচ্ছেদ, অঙ্গসজ্জা সামগ্রী সংগ্রহ ও সংরক্ষণ।

□ চলচ্চিত্র বিভাগ

* নিয়মিত চলচ্চিত্র প্রদর্শনী

* বিষয়ভিত্তিক চলচ্চিত্র উৎসব আয়োজন

* চলচ্চিত্র বিষয়ক পাঠচক্র, সেমিনার ও কর্মশালার আয়োজন।

* জেলা পর্যায়ে চলচ্চিত্র নির্মাণে উৎসাহ, উদ্দীপনা ও কর্মপরিকল্পনা তৈরী করা।

□ সংগীত ও নৃত্য দল গঠন

* জেলা শিল্পকলা একাডেমীতে শিশুদের সংগীত ও নৃত্য দল গঠন

* শিশুদের পরিবেশনায় নিয়মিত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আয়োজন

* জেলা শিল্পকলা একাডেমী সংগীত ও নৃত্য দল গঠন

□ পাপেট থিয়েটার

* জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে পুতুলনাচের আয়োজন করা।  

* বিভিন্ন বয়স ভিত্তিক শিল্পীদের পাপেট থিয়েটারে যুক্ত করা এবং পাপেট ও নতুন নতুন প্রযোজনা তৈরী করা

* স্কুল ও কলেজ ভিত্তিক পাপেট থিয়েটার কার্যক্রম বিস্তৃত করা।

□ লোক সংগীত উৎসব

* প্রত্যন্ত অঞ্চলে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা লোক সংস্কৃতির সমৃদ্ধ বিভিন্ন আঙ্গিক ও পরিবেশনা নিয়ে উৎসব আয়োজন করা।

* শহরবাসী শিল্পীদের সাথে লোকশিল্পীদের মেল বন্ধন তৈরী ও কর্মশালা আয়োজন।

□ বিভিন্ন দিবস উদযাপন

* জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বিভিন্ন দিবস যথাযথ মর্যাদায় পালন ও অনুষ্ঠানের আয়োজন।

* মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস/ স্বাধীনতা দিবস/ মহান বিজয় দিবস/ বাংলা নববর্ষ/ রবীন্দ্র জন্ম জয়ন্তী/ নজরুল জন্ম জয়ন্তী/ জাতীয় শিশু দিবস/ জাতীয় শোক দিবস/ এছাড়া পৌষ মেলা/ বসন্ত উৎসব/ বর্ষাবরণ/ শিশুনাট্য দিবস-২০ মার্চ/ পুতুল নাট্য দিবস-২১ মার্চ/ বিশ্ব নাট্য দিবস-২৭ মার্চ/ বিশ্ব নৃত্য দিবস- ২৯ এপ্রিল/ বিশ্ব সংগীত দিবস-২১ জুন ইত্যাদি দিবস পালন সভা, সমাবেশ, সেমিনার, শোভাযাত্রা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা। 

ছবি


সংযুক্তি